আরিহার কন্ঠ কানে আসতেই ইহান সটান হয়ে দাড়িয়ে পড়ে

আরিহা এইবার কিছুটা বিরক্তিকর সুরে বলে লাইক সিরিয়াসলি এমন একটা এক্সিডেন্ট করে তোমার মনে হয় যে তোমার ফোন আদো আস্ত আছে? রাস্তায় কোথায় না কোথায় পড়ে ভেঙে গিয়েছে অথবা কেউ উঠিয়ে নিয়েছে তা কে জানে। মানে নূন্যতম জ্ঞানবোধ বলেও কিছু আছে।

ইহান এইবার চিন্তিত কন্ঠে বলে  ফোনটা যদি বাই এনি চান্স কেউ নিয়ে থাকে তাহলে তো এখনই মানি ট্রান্সফারের সকল মাধ্যম কিছু সময়ের জন্য ব্লক করাতে হবে। তা না হলে প্রবলেম হয়ে যাবে  আরিহা তখন কাবার্ডের সামনে গিয়ে ইহানের জামাকাপড় বের করতে করতে বলে, — আমি আগেই সবকিছু করে ফেলেছি।

ইহান এইবার অবাক চোখে আরিহার দিকে তাকিয়ে থাকে। সে অপ্রস্তুত সুরে বলে উঠে তুমি একা সব কিছু এত স্মুথলি কিভাবে হেন্ডেল করো? মানে কোন কাজে কখনো কোন খুঁত থাকে না। একটা ঘটনার সাথে জড়িত সকল কাজ একা অনায়েসে মনে রাখো প্লাস ওই গুলো সঠিক সময়ে করেও ফেলো

 

Check Also

বাবা-মার কথা শুনতেই আরিহার মাথায় ধব করে

বাবা-মার কথা শুনতেই আরিহার মাথায় ধব আগুন জ্বলে উঠে পায়ের রক্ত মাথায় চড়ে বসে। চোখ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *